দাঁত ভালো রাখার ৭টি সহজ উপায়

দাঁতের স্বাস্থ্য ভালো রাখতে নিয়মিত এর যত্ন নিতে হবে। বিভিন্ন খাদ্য ও পানীয় থেকে কোটি কোটি ব্যাকটেরিয়া দ্বারা আক্রান্ত হয় মুখ। এই ব্যাকটেরিয়া দাঁতের ক্ষয় ঘটায়। এর থেকেই ডেন্টাল প্লেকের সৃষ্টি হয়। এই ডেন্টাল প্লেক দীর্ঘসময়ের জন্য দাঁতের সঙ্গে লেগে থাকে, অবশেষে

এগুলো অ্যাসিড তৈরি করে যা দাঁতের এনামেলকে নষ্ট করে দেয়। ভারতের একটি ডেন্টাল কেয়ার ব্র্যান্ডের প্রতিষ্ঠাতা ও সিইও ডা. নম্রতা রূপানি মুখের স্বাস্থ্যবিধি উন্নত রাখার বিষয়ে ৭ পরামর্শ দিয়েছেন। চলুন জেনে নেওয়া যাক সেগুলো-

১. স্বাস্থ্যকর খাবার খান। চিনি ও কোমল পানীয় এড়িয়ে চলুন।
২. ফ্লোরাইড টুথপেস্ট ও একটি নরম টুথব্রাশ ব্যবহার করে দিনে দুবার দাঁত ব্রাশ করুন। প্রতি ৩-৪ মাস অন্তর টুথব্রাশ বদলে ফেলুন।

৩. প্রতি ৬ মাস পরপর দাঁতের ডাক্তারের কাছে গিয়ে নিয়মিত ডেন্টাল চেকআপ করুন। দাঁত পরিষ্কার করুন।
৪. জিহ্বা প্রতিদিন ফ্লস করুন ও পরিষ্কার রাখুন। কারণ জিহ্বা জমে থাকে ক্ষতিকর সব ব্যাকটেরিয়া।

৫. দাঁতের স্বাস্থ্য ভালো রাখতে দুগ্ধজাত পণ্য গ্রহণ করুন। এতে ক্যালসিয়াম, ফসফরাস ও কেসিন থাকে, এটি একটি প্রোটিন যা দাঁতের এনামেলকে রক্ষা করে ও দাঁতের ক্ষয় রোধ করতে সাহায্য করে।
৬. শাক-সবজিতে আয়রন, ক্যালসিয়াম, ফলিক অ্যাসিড, জিংক ও ম্যাগনেসিয়াম থাকে, পাশাপাশি এগুলোতে থাকা অ্যান্টি অক্সিডেন্টগুলো দাঁত ও মাড়িকে বিভিন্ন রোগ থেকে রক্ষা করে।

৭. আঁশযুক্ত ফলও মৌখিক স্বাস্থ্যের জন্য ভালো। এক্ষেত্রে আপেল ও অন্যান্য ফল মৌখিক স্বাস্থ্যবিধির জন্য দুর্দান্ত কারণ তারা লালা উৎপাদন বাড়িয়ে দেয়।বিভিন্ন আঁশযুক্ত ফল খাওয়ার ফলে দাঁত পরিষ্কার হয়, যা ব্রাশ হিসেবে কাজ করে। মুখের দুর্গন্ধ দূর করতে দাঁত থেকে ফলক পরিষ্কার করতেও সাহায্য করে আঁশযুক্ত ফল।

About Susmita Roy

Check Also

ঘাড়ের ট্যান ও কালো দাগ থেকে মুক্তি পাওয়ার সহজ উপায়!

ঘাড়ের ট্যান ও কালো দাগ থেকে মুক্তি পাওয়ার সহজ উপায়!

আবহাওয়ার পরিবর্তন এবং দীর্ঘক্ষণ ঘরের বাইরে থাকার কারণে ত্বকে অত্যধিক ট্যান পড়ে যায়। ট্যানের ফলে …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *