মাছের ডিম খাওয়ার অবাক করা কিছু উপকারিতা!

মাছ বাঙালির অতি পছন্দের একটি খাবার। এই জন্যই বলা হয় ‘মাছে ভাতে বাঙালি’। মাছের পাশাপাশি মাছের ডিমও অনেকের পছন্দ। এর রয়েছে নানা উপকারী উপাদান, যা শরীরকে সুস্থ রাখে। আসুন জেনে নেওয়া যাক মাছের ডিমের স্বাস্থ্য উপকারিতা:- মস্তিষ্কের স্বাস্থ্যে উন্নতি

মাছের ডিমে আছে ইপিএ, ডিএইচ ও ডিপিএ (এক ধরনের ফ্যাটি অ্যাসিড)। এসব উপাদান মস্তিষ্কের স্বাস্থ্যের উন্নতি করতে সহায়তা করে। রিউম্যাটয়েড আর্থ্রাইটিস হ্রাস রিউম্যাটয়েড আর্থ্রাইটিস হাত, পা, কনুই, হাঁটু, কবজি ও গোড়ালির গাঁটকে প্রভাবিত করে। মাছ ও মাছের

ডিমে থাকা ওমেগা থ্রি ফ্যাটি অ্যাসিড এ অসুখের লক্ষণগুলো হ্রাস করতে সহায়তা করে। চোখ ভালো রাখতে মাছের ডিমে আছে ভিটামিন-এ। এই ভিটামিন চোখ ভালো রাখতে সাহায্য করে। এছাড়া ডিএইচএ ও ইপিএ শিশুদের চোখের জ্যোতি বৃদ্ধি করতে এবং রেটিনার কার্যকারিতাকে

উন্নত করতে গুরুত্বপূর্ণ। অ্যানিমিয়া থেকে মুক্তি মাছের ডিমে উপস্থিত স্বাস্থ্যকর উপাদানগুলো রক্ত পরিষ্কার করতে এবং হিমোগ্লোবিন বাড়ায়, যা অ্যানিমিয়া থেকে মুক্তি পেতে খুবই সহায়ক। হাড় শক্ত করতে হাড়কে শক্ত করতে, দাঁতকে মজবুত এবং ভালো রাখতে সাহায্য করে মাছের

ডিমে থাকা ভিটামিন-ডি। হার্টের অসুখ প্রতিরোধে হার্টের অসুখ প্রতিরোধেও এ খাবার বেশ উপকারী। এতে উপস্থিত ওমেগা থ্রি ফ্যাটি অ্যাসিড ও ভিটামিন-ডি মূলত হার্টকে সুস্থ রাখে। রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণে মাছের ডিমে থাকা ওমেগা থ্রি ফ্যাটি অ্যাসিড দেহের ভেতরে রক্ত জমাট বাঁধতে দেয় না। এছাড়া প্রদাহ হ্রাস করতে সহায়তা করে, যা উচ্চ রক্তচাপের হাত থেকে দেহকে রক্ষা করে।

About Susmita Roy

Check Also

হৃদরোগ ছাড়াও আরো যেসব কারণে বুকে ব্যথা হতে পারে

হৃদরোগ ছাড়াও আরো যেসব কারণে বুকে ব্যথা হতে পারে

হৃদরোগ আজকাল বয়স্কদের ছাড়াও অপ্রাপ্ত বয়স্কদের হয়ে থাকে। দিন দিন এই রোগে আক্রান্ত হয়ে মৃতের …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *