হাতের লেখা সুন্দর ও দ্রুত করার ৪ টি সেরা উপায়!

সকল ধরনের মানুষ, বিশেষত ছাত্র ছাত্রীদের জন্য খুব দরকারী একটি বিষয়। সুন্দর ও দ্রুত হাতের লেখা, ছাত্র ছাত্রীদের পরীক্ষায় সকল প্রশ্নের উত্তর সঠিকভাবে দিতে সহায়তা করে এবং এতে তারা সহজেই ভালো রেজাল্ট করতে পারে।কিন্তু অপরদিকে যেসব ছাত্র ছাত্রীদের হাতের লেখা

খারাপ এবং স্লো, তারা অন্যদের থেকে অনেক পিছিয়ে থাকে। লেখা খারাপ হওয়ার হয়তো তাদের লেখা শিক্ষক বা অন্য যে কেউ বুঝতে পারেনা, লেখা স্লো হওয়ায় হয়তো তারা পরীক্ষায় সকল প্রশ্নের উত্তর করতে পারেনা। ফলে পরীক্ষার রেজাল্ট খারাপ হবে, এটা স্বাভাবিক। কিন্তু

এভাবেই কি চলতে থাকবে? তাদের হাতের লেখা সুন্দর ও দ্রুত করার কি কোনোই উপায় নেই?অবশ্যই রয়েছে, তবে সেগুলো জানার প্রয়োজন রয়েছে ও চর্চার দরকার রয়েছে। আর আজকের পোস্টে আমরা সেই কাজটিই আপনাদের উদ্দ্যেশ্যে করবো। আমরা আপনাদের জানাবো,

কিভাবে শিক্ষার্থীরা দ্রুততার সাথে লেখা শিখবে এবং তাদের হাতের লেখা সোজা ও সুন্দর করবে। যদি সত্যিই এগুলো করতে চান, তাহলে অবশ্যই আমাদের পোস্ট শেষ অব্দি অবশ্যই পড়বেন। তো চলুন আর দেরি না করে, মূল আলোচনা শুরু করা যাক। হাতের লেখা সুন্দর ও দ্রত করার সঠিক উপায়:

১. সঠিক কলম বাছাই করুন আমরা সবাই জানি, লেখার জন্য কলম হচ্ছে মূল উপাদান। কিন্তু আমরা হয়তো যেকোনো ধরনের কলম দিয়েই সবসময় লেখালেখি করে থাকি। তবে আজ জেনে নিন, যেকোনো ধরনের কলম ব্যবহার করা, হাতের লেখা খারাপ ও স্লো হওয়ার মূল কারণ। কারণ এমন প্রায়শই হয় যে, আমরা বেশি দামি বা ব্র‍্যান্ডের কলম কিনতে গিয়ে বেশি ভারী, মোটা, বা বাজে কালির কলম কিনে ফেলি। আবার এমনও হয় যে, হয়তো আপনি চিকন কালির কলমে ভাল লিখতে পারেন, কিন্তু ব্রান্ডের কলম কিনতে গিয়ে মোটা কালির কলম কিনে ফেললেন আর আপনার লেখা খারাপ হয়ে গেলো। এই ভুলটি কখনোই আর করবেন না, কেননা আপনার কলম আপনার পছন্দমতো কিনুন

এবং আপনার যেমন কলম দিয়ে লেখা ভাল হয়, সেই কলমই সর্বদা ব্যবহার করবেন। কখনো বেশি ভারী, অতিরিক্ত মোটা কলম ব্যবহার করবেন না। কারণ এতে হাত দ্রুত ব্যথা হয়ে যায় এবং লেখা ক্রমশ খারাপ হতে থাকে। তাই এখন থেকে নিজের পছন্দের ও ভাল লেখা হয়, এমন কলম ব্যবহার করবেন, দেখবেন লেখা ভালো হবে।
২. কলমের ওজন হালকা করুন আপনারা হয়তো জানেন না যে, হালকা কলম দিয়ে সবসময় লেখা ভাল হয়। কিন্তু আমরা এই বিষয়টিকে কখনোই গুরুত্ব দেইনা। এর বড় প্রমাণ হলো, কলমের ক্যাপ লাগিয়েই আমরা ৮০-৯০% শিক্ষার্থীরা লিখে থাকি।এতে কলমের ওজন অতিরিক্ত থাকে এবং আমাদের হাতের লেখাকে স্লো করে দেয়। তাই এখন থেকে অবশ্যই লেখার সময়ে কলমের ক্যাপ খুলে রাখবেন। হতে পারে যে

ক্যাপ হয়তো পরে আর খুজে পেলেন না, কিন্তু পরীক্ষার স্বার্থে তো এটুকু করতেই পারেন, নাকি?
৩. কলমের গ্রিপে নজর দিন আমরা সবাই লেখার সময়ে, শুধু লেখাকেই প্রাধান্য দিয়ে থাকি, অন্য কোনো দিকে নজর দেইনা। কিন্তু ভাবনার বিষয় হল, লেখার সময়ে যখন আমরা অতিরিক্ত সময় ধরে লিখতে থাকি, তখন আমাদের আঙ্গুল ঘামতে থাকে এবং আমাদের লেখা খারাপ হতে থাকে এবং ধীরগতিরও। কিন্তু, সঠিক কলম বাছাই করলে, আঙুলের এই ঘাম কলমের গ্রিপে বসে যায় ও আমাদের লেখার গতি বজায়

থাকে। এমন কিছু কলম আছে দেখবেন, যে এগুলোর গায়ে রাবারের গ্রিপ থাকে।এসব কলমগুলো খুবই ভালো এবং হাতের গ্রিপ রাখতে সহায়তা করে। যাদের হাত বেশি ঘামে, তারা এ ধরনের হালকা ও গ্রিপযুক্ত কলমগুলো ব্যবহার করতে পারেন। এতে লেখা সুন্দর ও দ্রুত হবে। ৪. অনুশীলন করা আমরা এটা বলতে বাধ্য যে, অনুশীলনের উপরে কোনো সমাধান নেই। আমরা আপনাকে আপনার অন্যান্য উপাদান এর সমাধান করে দিতে পারি অবশ্যই, তবে এসব উপকরণ দিয়ে অবশ্যই আপনাকে অনুশীলন করতে হবে। যাদের লেখা স্লো ও খারাপ, তারা অবশ্যই দাগকাটা পেজে সবসময় লেখার প্র‍্যাক্টিস করবেন। প্র‍্যাক্টিসের সময় অবশ্যই নিজের পছন্দের কলম ব্যবহার করবেন এবং এই কলমটি

কখনো বদলাবেন না। পড়া যেমন বারবার রিভিশন দেয়া হয়, তেমনি হাতের লেখা ঠিক করতে আপনিও বারংবার অনুশীলন করতে থাকুন। দেখবেন একসময় ঠিকই ফলাফল পাবেন। আপনি যতো বেশি লেখা অনুশীলন করবেন, দেখবেন আপনার হাত তত বেশি সচল হবে ও লেখা সুন্দর হতে থাকবে। তাই যদি আপনার লেখা স্লো ও খারাপ হয়ে থাকে, তাহলে আজ থেকেই আমাদের পোস্টের সমাধান নিয়মানু্যায়ী অনুশীলন শুরু করুন।

About Susmita Roy

Check Also

সন্তান সব সময়ে মুখে মুখে তর্ক করলে আপনি যা করবেন!

সন্তান সব সময়ে মুখে মুখে তর্ক করলে আপনি যা করবেন!

পরিবারের ছোট সদস্যরা মাঝে মধ্যেই ভুল করে। তা সে জেনে হোক কিংবা না যে। এই …

Leave a Reply

Your email address will not be published.