গোলাপ জল দিয়ে সুন্দর হওয়ার ঘরোয়া টোটকা! শিখে নিন বানানোর উপায়

গোলাপ জল (rose water) শুধুমাত্র গন্ধ এবং স্বাদে ব্যবহার হয় না। গোলাপ জল (rose water) দিয়ে রূপচর্চা প্রাচীন কাল হতেই ব্যবহার করে আসছে। এর দ্বারা প্রাকৃতিক ময়েশ্চারাইজিং ও ত্বকের জন্য নিরামক হিসেবে কাজ করে। অনেক মানুষ তাদের ত্বকে কি use করবেন তা

নিয়ে দুশ্চিন্তা করে। যেমন তৈলাক্ত স্কিন, ময়লা, শুষ্ক স্কিনের জন্য প্রয়োজন অতিরিক্ত যত্ন। আজকে আমরা গোলাপ জল তৈরির নিয়ম ও গোলাপ জলের উপকারিতা সাথে গোলাপ জল (rose water) বানানোর নিয়ম এবং গোলাপ জল ব্যবহারের নিয়ম দেখিয়ে দিব।

চলুন তবে বিস্তারিত জেনে নেওয়া যাক-

১। কিভাবে গোলাপ জল (rose water) তৈরি করবেন?
গোলাপ জল (rose water) গোলাপ ফুলের পাপড়ি থেকে তৈরি করা হয়। কিন্তু এর অপরিহার্য তেল এক্সট্রেকশন কোল্ড প্রেসারের মাধ্যমে সম্পন্ন করা হয়। একটি স্টিম ডিস্টিলেশন প্রক্রিয়ায় গোলাপের পাপড়ি থেকে তেল ও গোলাপ জল (rose water) আলাদা করা হয়।

গোলাপজল একটি প্রাকৃতিকভাবে প্রক্রিয়ায় oil থেকে আলাদাকৃত। গোলাপ জলের উপকারিতা অনেক। গোলাপজল পারফিউম হিসেবে, চকলেট বা মিষ্ট জাতীয় কোন খাবার এবং বিভিন্ন ঔষধ প্রস্তুত করতে ব্যবহার করা হয়। আপনি আপনার ঘরে বসেই গোলাপ জল (rose water) তৈরি করার কথা ভাবছেন। আপনি খুব সহজেই ঘরে বসে এটি প্রস্তুত করতে পারেন। এর জন্য আপনার একটি চুলা এবং কিছু টুলস এর প্রয়োজন।গোলাপজল আসলেই খুব সস্তা। এর এক বোতল দিয়ে অনেক কাজে use করা সম্ভব হয়, এমনকি ত্বক সহ।

২। কোন ধরনের গোলাপ থেকে গোলাপ জল (rose water) তৈরি করা হয়?
সাধারনত, গোলাপজল ইরান এ প্রস্তুত করা হয়ে থাকে। তারা রোজা ডেমাস্কেনা এর পাপড়ি ব্যবহার করে। যা বুটি রোজ নামে পরিচিত এবং এটি ইরানে জন্মায়। এই গোলাপ একটি পর্ণমোচি গুল্ম যা ২.২ মিটার পর্যন্ত লম্বা হয়ে বৃদ্ধি পায়। এই গোলাপ হালকা গোলাপি রঙ থেকে bright লাল রঙে পরিনত হয়। এই গোলাপ ফুল গাছের ফুল ছোট এবং একত্রে অনেক গুলো একসাথে জন্মায়।গোলাপ বিভিন্ন ধরনের হয়ে

থাকে। যেমন- সামার ডেমাস্ক এবং শরত ডেমাস্ক ইত্যাদি। এই গোলাপ এর উদ্ভব মধ্যপ্রাচ্যে, এখন ইউরোপ, উত্তর আমেরিকা ও এশিয়ার বিভিন্ন অঞ্চলেও জন্মায়। এই গোলাপের একটি সূক্ষ্ম সুবাস রয়েছে এবং প্রায়ই বিভিন্ন ধরনের পারফিউম, সুগন্ধি গুল তৈরি করতে ব্যবহার করা হয়। খাবারের সালাদ ও ভেষজ চা বানানোর ক্ষেত্রে ব্যবহার করা হয়। আপনি যদি আপনার বাগানে ডেমাস্ক রোজ চাষ করে থাকেন, তবে এটি আপনাকে ঘরে বসেই গোলাপ জল (rose water) তৈরি করতে সাহায্য করবে। কিন্তু অন্যান্য সুগন্ধি জাত নিয়ে পরীক্ষা করতে ভয় পাবেন না।

৩। গোলাপ জল (rose water) কেন আপনার skin এর জন্য উপকারীঃ
গোলাপ জল (rose water) আপনার স্কিন এর জন্য বিভিন্ন পন্থায় উপকার করে থাকে। আপনি আপনার ড্রাই skin এ প্রয়োগ করলে এটি স্কিন ময়েশ্চাইরাইজ বৃদ্ধি করার উপকার করবে। এটি তৈলাক্ত skin এর জন্য খুব উপকার করে থাকে। তৈলাক্ত skin এর তেল নিঃসরন এর জন্য টোনার হিসেবে কাজ করে থাকে। এটি আপনার skin এর ক্ষতিগ্রস্থ চামড়া ঠিক করে এবং স্কিন এর সংবেদনশীলতা প্রশমিত করে।

পরিশেষে, এটি ব্রণ, ছত্রাক বা অন্যান্য ব্যাকটেরিয়াজনিত সংক্রামণে ত্বকের এন্টিসেপ্টিক এবং ব্যাকটেরিয়ার হাত থেকে স্কিনকে রক্ষা করে। গোলাপজল আপনার দেহের যেকোনো অংশে ব্যবহার করতে পারবেন। এটি আপনার চোখের চার পাশে ব্যবহার করতে পারেন, কিন্তু চোখের ভিতরে যেন প্রবেশ না করে। এটি ব্যবহার করার পর দ্রুত শুকিয়ে যায় এবং ত্বকের ময়েশ্চারাইজিং এর বৈশিষ্ট্য বিদ্যমান থাকে।
৪। কিভাবে আপনি আপনার ত্বকের জন্য গোলাপ জল (rose water) প্রস্তুত করবেন? স্বাভাবিক ভাবেই পারফিউম ইন্ডাস্ট্রি এর জন্য গোলাপ জল (rose water) প্রস্তুত করা হয়ে থাকে। আপনি ঘরে বসেও এটি প্রস্তুত করতে পারবেন। এটি বিশেষত উপকারি, যদি আপনার নিজের গোলাপ গাছ থেকে প্রস্তুত করে থাকেন। আপনি যে ধরনের গোলাপ ব্যবহার করবেন তার উপর নির্ভর করে সুবাস সমৃদ্ধ গোলাপ জল (rose water) প্রস্তুত হবে। এই কৌশল দিয়ে আপনি আপনার গোলাপ জল প্রস্তুত করে মান নিশ্চিত করুন।

৫। গোলাপ জল (rose water) বানানোর নিয়ম – প্রয়োজনীয় দ্রব্যাদিঃ বাড়ীতে গোলাপ জল (rose water) প্রস্তুত করতে নিচের আইটেম গুলো সংগ্রহ করুন। গোলাপের বাগান থেকে ২ বা ৩টি গোলাপের পাপড়ি এক জগ পানি ২-৩টা বরফের টুকরা ছোট ইট ঢাকনা সহ নিল ক্যানিং পাত্র স্টীলের বাটি ৬। গোলাপ জল (rose water) বানানোর পদ্ধতি নিচের ধাপ গুলো অনুসরন করে আপনি নিজেই তৈরি করতে পারবেন শুদ্ধ গোলাপ জল (rose water) । পাত্রের মধ্যে ইট রাখুন। ইটের উপর বোল রাখুন। পাত্রের মধ্যে গোলাপের পাপড়ি রাখুন। বোলের মধ্যে রাখবেন না। পাত্রের মধ্যে ইটের উপর পর্যন্ত গোলাপের পাপড়ি দিন। গোলাপের পাপড়ির উপর পানি ঢালুন। পাত্রের মধ্যে ইট পর্যন্ত

পানি দিয়ে পুর্ণ করুন। পাত্রটি ঢাকনা দিয়ে উল্টিয়ে বা একপাশে ঢেকে দিন। চুলাটি জ্বালান এবং ৩/৪ হিট তাপমাত্রায় রাখুন। বাষ্প হওয়া পানি গুলো বোল এ সংরক্ষন করুন। দ্রুত ঢাকনার উপর ২-৩ টা বরফের টুকরা রাখুন। বাষ্প হওয়া পানি বরফের কারনে বোল এ সংরক্ষন হবে,
তারপর এটা ঘনিভুত হবে। এরপর ঢাকনা একটু একটু করে ঘুরিয়ে ফোঁটা ফোঁটা পানি জমা করতে হবে। আপনি এভাবে জল সংগ্রহ করতে থাকবেন। ২০-২৫ মিনিট পর আপনি গোলাপ জলের (rose water) কতক অবস্থা সম্পর্কে জানতে হবে। দ্রুত ঢাকনা উঠিয়ে ফেলুন। চামচের মাধ্যমে ১-২ চামচ গোলাপ জল (rose water) পান করে পরীক্ষা করুন। এরপর একটি বোতলে সংরক্ষন করুন। পরবর্তীতে আপনার আরও গোলাপ জল (rose water) প্রয়োজন হলে ধাপ গুলো পুনরায় অনুসরন করুন। প্রয়োজনীয় গোলাপ জল (rose water) পেয়ে গেলে কার্যক্রম বন্ধ করুন। চুলা বন্ধ করুন। ব্যবহৃত গোলাপের পাপড়ি আপনার উৎকৃষ্ট সার হিসেবে ব্যবহার করতে পারবেন। সব কিছু পরিস্কার করে ফেলুন। এখন আপনার কাছে ১০০% সঠিক পরিশুদ্ধ গোলাপজল, যার স্বাদ ও গন্ধ উভয়ই রয়েছে।

৭। অপ্টিমাল বেনিফিটস এর জন্য কিভাবে গোলাপ জল (rose water) ব্যবহার করতে হয়ঃ যাইহোক, আপনি গোলাপ জল তৈরি করুন অথবা কিনুন, নিশ্চিত হউন যে আপনি গোলাপ জল (rose water) ব্যবহারের নিয়ম সঠিক ভাবে করছেন। প্রস্তুত করার পদ্ধতি একই রকম, উদ্দেশ্য কোন ব্যাপার না। আপনি যদি গোলাপ জল (rose water) টোনার, ময়েশ্চারাইজার অথবা এন্টিসেপ্টিক হিসেবে ব্যবহার করেন,

তাহলে নিচের ধাপ গুলি অনুসরন করুন। শুধুমাত্র ১০০% বিশুদ্ধ তুলা ব্যবহার করুন। বোতল খুলুন, বোতলের মুখে তুলা লাগিয়ে বোতল্টি সামান্য উল্টিয়ে তুলাটি হালকা ভিজিয়ে নিন। ভেজা তুলাটি দিয়ে আপনার স্কিন এ হালকা ভাবে মেসেজ করুন। বোতল এর মুখ লাগিয়ে দিন। গোলাপ জলের (rose water) বোতলটি ঠান্ডা স্থানে রাখুন। আপনি কখনই গোলাপ জল অতিরিক্ত ব্যবহার করবেন না। কিন্তু আপনি যদি অতিরিক্ত ব্যবহার করেন, এটি দ্রুত শেষ হয়ে যাবে। আপনি যদি এটি নিজে তৈরি করে থাকেন, তাহলে আপনার সব কষ্ট বিফলে যাবে।

৮। স্কিন এর উজ্জলতার জন্য সেরা রেসিপি অনেক মানুষ গরম আবহাওয়ায় বাস করে, তারা তাদের স্কিন এর উজ্জলতার জন্য চেষ্টা করে। এই আবহাওয়ায় অনেকের চেহারা নষ্ট হয়ে যায়। অন্যান্য মানুষের চামড়া সংক্রমন, ব্রণ এর কারনে ত্বক বিবর্নতা রয়েছে। কয়েক শতাব্দী ধরে স্কিন এর জন্য লেবুর রস ব্যবহৃত হয়ে আসছে, কারন এতে রয়েছে প্রাকৃতিক ব্লিচিং বৈশিষ্ট্য।লেবু এর মধ্যে রয়েছে ভিটামিন সি এর প্রাকৃতিক উপাদান। ভিটামিন সি সানবার্ন, সানস্পট এবং এজ স্পট দূর করার ক্ষেত্রে ও ত্বকের উজ্জলতা বৃদ্ধি করতে ব্যবহার করা হয়। এটি স্কিন টোন ও নষ্ট চামড়া দূর করে। লেবুর রস ও গোলাপজল একত্রে স্কিন এর উজ্জলতার জন্য দ্রুত কার্যকরি। গোলাপজল ও লেবুর রস মিশ্রনে কোন জ্বালাময় হবে না।

৯। স্কিন এর যত্নের জন্য লেবুর রস ও গোলাপজলের মাধ্যমে মিশ্রনের উপকরনঃ আপনার হাতে তৈরি লেবুর রস এবং গোলাপ জল (rose water) আপনার স্কিন লাইটেনিং এর টোনার হিসেবে ব্যবহার করতে পারবেন। ১টি সতেজ লেবু গোলাপজল এক বোতল পানি প্লাস্টিকের ঢাকনা সহ বোতল (ছোট সাইজের) ১০। স্কিন লাইটেনিং টোনার এর সেরা পদ্ধতিঃ নিচের ধাপ গুলি অনুসরন করে লেবু ও গোলাপ জলের (rose water) স্কিন লাইটেনিং টোনার তৈরি করুন। লেবুর জুস তৈরি করুন। Juice এর মধ্যে লেবুর কোন খোসা বা বিচি পরে থাকলে তা তুলে

ফেলুন। যে পরিমান লেবুর জুস বানাবেন, ঠিক তার অর্ধেক পরিমান গোলাপ জল (rose water) জুসের মধ্যে মিশ্রিত করুন। তারপর পরিমান মত পানি ঢালুন। প্লাস্টিক বোতলে মুখ লাগিয়ে মিশ্রন করুন। গোলাপজল এর ব্যবহারবিধির মতই এটিও একই ভাবে ব্যবহার করুন। স্কিন এর যেখানে যেখানে সেখানে use করুন।গোলাপজল কিনার আগে অবশ্যই পরীক্ষা করে নিন আসল গোলাপের পাপড়ি থেকে প্রস্তুত করা কিংবা কৃত্রিম যৌগ থেকে প্রস্তুত করা হয়েছে কিনা। অনেকে নকল ফ্লেবার বা গন্ধ দিয়ে গোলাপ জল (rose water) প্রস্তুত করে। আপনি নিশ্চিত হউন যে ১০০% সঠিক ফর্ম কিনেছেন।

About Susmita Roy

Check Also

শিশুর দাঁত ভালো রাখবে যে খাবার

শিশুর দাঁত ভালো রাখবে যে খাবার

দাঁত থাকতে দাঁতের মর্যাদা নেই বলে যে একটা কথা আছে, এটা সবার ক্ষেত্রেই খাটে। তবে …

Leave a Reply

Your email address will not be published.