মাছ কেনায় কখনো ঠকবেন না যদি এই ৯টি ট্রিক্স জানা থাকে!

মাছ কিনতে গিয়ে ঠকে আসেন নি বা দোকানী প’চা মাছ গছিয়ে দেয়নি, এমন মানুষ খুঁজে পাওয়া মুশকিল। যতই ফরমালিন বা রঙ দেওয়া হোক না কেন, টাটকা ও ওষুধ মু’ক্ত মাছ চিনে নেওয়ার জন্য কৌশল আছে। এই ৯টি কৌশল প্রয়োগ ক’রতে পারলে জীবনে আর কখনো

মাছ কিনে ঠকতে হবে না আপনাকে। ১. টাটকা মাছের চোখ সবসময় স্বচ্ছ হবে। একদম ঝকঝকে চোখ হবে, দেখলে মনে হবে মাছটি জীবন্ত। সময়ের সাথে সাথে এই চোখ ঘোলাটে, মৃ’ত হয়ে আসে। যত সময় যায়, চোখ তত নিষ্প্রা’ণ। ফরমালিনে মাছের মাংস পচে না ঠিকই, কিন্তু চোখের জীবন্ত ভাব ন’ষ্ট হওয়া ঠেকানো যায় না। চোখ দেখলেই চিনে নিতে পারবেন তাজা মাছ। ২. টাটকা মাছ কখনোও শক্ত

হবে না, আবার নরমও হবে না। তাজা মাছ হবে “বাউন্সি”। যদি আঙ্গুল দিয়ে চা’প দিলে দেখেন যে মাছ একদম শক্ত, বুঝবেন যে সেটা ফ্রিজে রাখা ছিল। আর যদি আঙ্গুল দিলেই দেবে যায় ভেতরে, বুঝবেন মাছের বয়স হয়েছে। তাজা মাছে আপনি আঙ্গুল দিয়ে চা’প দিলে দেবে যাবে। কিন্তু আঙ্গুল সরিয়ে নিলেই জায়গাটা ঠিক হয়ে যাবে। ৩. মাছের কানকো দেখাটা টাটকা মাছ চেনার একটা ভালো উপায়। যদিও

মাছের কানকোতে এখন রঙ মিশিয়ে রাখেন দোকানিরা। তাই শুধু কানকো দেখে মাছ কিনবেন না। জে’নে রাখু’ন, টাটকা মাছের কানকো হবে তাজা র’ক্তের রঙের এবং পিচ্ছিল, স্লাইমি ভাব থাকবে। ৪. চোখ আর কানকো দেখার পর মাছের শ’রীর দেখু’ন। মাছের শ’রীর কি চকচকে আর উজ্জ্বল রূপালি রঙের? বিশেষ করে সুপারশপের মাছে দেখবেন চকচকে রূপালি রঙের বদলে হলদে, লালচে বা অন্য রঙের আভা দেখা

যায় মাছের গায়ে। এতে বুঝে নেবেন যে মাছটি অতি অবশ্যই অনেকদিনের পুরনো। তাজা মাছ চকচক করবে, সময় যাওয়ার সাথে সাথে চকচকে ভাব একেবারেই ম্লান হয়ে যাবে তা সে যতই ফরমালিন দেয়া হোক না কেন। ৫. তাজা মাছের গন্ধ হবে জলের মত, সামুদ্রিক মাছ হলে সমুদ্রের মত। শসার গন্ধের সাথেও মিল পেতে পারেন। যে মাছ থেকে বাজে গন্ধ আসবে, সেটা নিঃসন্দে’হে তাজা মাছ নয়। ৬. চিংড়ি

মাছের ক্ষেত্রে কিন্তু পদ্ধতি ভিন্ন। যদি চিংড়ী মাছের খোসা শক্ত আর ক্রিসপি থাকে, তাহলে মাছ তাজা। যদি খোসা নরম আর নেতিয়ে পড়া হয়, তাহলে মাছ ভালো নয়। ৭. সুপার শপের কে’টে রাখা মাছ বা ফিশ ফিলে কিনতে চান? কাটা মাছের রঙ লক্ষ্য করুন। টাটকা মাছের মাংস হবে উজ্জ্বল রঙের। রঙ যত বিবর্ণ, মাছ তত প’চা। ৮. বাজারে কে’টে ভাগা দেওয়া মাছ কিনবেন? ভালো করে লক্ষ্য করুন মাছের

আশেপাশে কোন সাদা বা ফ্যাকাশে রঙের জল আছে কিনা। যদি থাকে, বুঝবেন মাছ ভালো নয়। টাটকা মাছের আশেপাশে স্বচ্ছ জল থাকবে। ৯. জিয়ল মাছ যেমন শিং, মাগুর, শোল ইত্যাদি কিনতে গেলেও সা’বধান। আজকাল দোকানিরা ম’রা জিয়ল মাছকেও টাটকা বলে ধ’রিয়ে দেন। জিয়ল মাছ যদি ট্রের মধ্যে ছটফট করে তাহলে সেই মাছ কিনুন। আগে থেকে বের করে ট্রে-তে সাজিয়ে রাখা মাছ নয়।

About Susmita Roy

Check Also

শিশু খেতে না চাইলে যা মা-বাবার করণীয়

শিশু খেতে না চাইলে যা মা-বাবার করণীয়

নবজাতক থেকে শুরু করে বড় শিশুরাও অনেক সময় খাবারে অনীহা দেখায়। এর ফলে মায়েরা শিশুকে …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *