আটা, ময়দা, বেসনে হওয়া ছোট ছোট পোকা দূর করার উপায়

সকালের নাস্তা থেকে ধরে বিকেলের ভাজাপোড়া যা-ই হোক না কেন…আটা, ময়দা, বেসনের ব্যবহার তো প্রতিদিনের। রোজ রোজ তো আর একই জিনিষ বাজার করা যায় না। তাই আটা, ময়দা, বেসন –

এসব কেনাও হয় একটু বেশি পরিমানে। এই দরকারি জিনিষগুলো অল্প কয়দিন ঘরে থাকলেই দেখা যায় নতুন সমস্যা। প্যাকেট খোলার পর কিছুদিন ঘরে থাকলেই এতে ছোট ছোট পোকা দেখা যায়। এরপর খাবার অনুপযোগী হয়ে পরে, অর্থাৎ নষ্ট হয়ে যায়। ফলাফল – পয়সা তো

নষ্ট হয়ই সাথে জিনিষেরও অপচয়। অথচ কিছু কৌশল ব্যবহার করলে সহজেই কোনোরকম পোকামাকড় ছাড়াই আটা, ময়দা, বেসন সংরক্ষন করতে পারবেন অনেক দিন। তাহলে আসুন জেনে নেই এই নিত্য প্রয়োজনীয় জিনিষগুলো সংরক্ষনের কার্যকরী সেই দশটি কৌশল।

ট্রিকস – ০১ নিমপাতা যে কোনো ধরনের পোকামাকড় দূর করতে সবার আগে যে নামটা আসে মাথায় সেটা হচ্ছে নিম পাতা। দীর্ঘ দিন আটা, ময়দা ও বেসন সংরক্ষন করতে চাইলে যে কৌটায় সংরক্ষন করতে চান তাতে কয়েকটি তাজা নিম পাতা দিয়ে আটা, ময়দা, বেসন রাখুন। পোকায় ধরবে না। পিঁপড়াও আসবে না এর ধারেকাছে।
ট্রিকস – ০২ বড় এলাচ বড় এলাচ তো সবার ঘরেই থাকে। আটা, ময়দা কিংবা বেসন রাখার কৌটার তলায় কয়েকটা বড় এলাচ রেখে দিন। তার উপরেই আটা, ময়দা, বেসন রাখুন। পোকামাকড় দূরে থাকবে।

ট্রিকস – ০৩ পুদিনা পাতা পোকামাকড় পুদিনা পাতার কড়া গন্ধ সহ্য করতে পারে না। তাই আটা, ময়দা কিংবা বেসন সংরক্ষন করতে এর কৌটায় কয়েকটা পুদিনা পাতা রেখে দিন। সম্ভব হলে এক সপ্তাহ পর পর পাতা পাল্টে দিন।
ট্রিকস – ০৪ কাঁচা তেজপাতা কাঁচা তেজপাতার একটা কেমন ঝাঁঝালো গন্ধ আছে যা আটা, ময়দা, বেসনকে পোকার হাত থেকে বাঁচাতে সাহায্য করে। তাই বেশি দিন এসব জিনিষ সংরক্ষন করতে চাইলে এই জিনিষগুলোর সাথে কৌটায় কয়েকটি কাঁচা তেজপাতা রেখে দিন।

ট্রিকস – ০৫ কাঁচা হলুদ আস্ত কাঁচা হলুদ রোদে শুকিয়ে নিন। এটা আটা, ময়দা বা বেসনের প্যাকেটে কিংবা কৌটায় রেখে দিন। পোকা হবে না। বিশেষ করে ছোলা ও ডালের বেসনকে পোকা থেকে দূরে রাখতে কাঁচা হলুদ খুবই কার্যকরী।
ট্রিকস – ০৬ ফ্রিজিং ময়দা আর বেসন অনেক দিন স্বাভাবিক তাপমাত্রায় থাকলে অনেক সময় খুবই বিচ্ছিরি গন্ধ সৃষ্টি হয়। এই গন্ধ দূর করতে এদের শুকনো কৌটায় ভরে ফ্রিজে রেখে দিন। গন্ধ কিংবা পোকা, কোনোটাই হবে না। বরং ভালো থাকবে অনেক দিন।

ট্রিকস – ০৭ লবঙ্গ এক টুকরো পরিষ্কার সুতির কাপড়ে আট কি দশটা লবঙ্গ রেখে পুটলি তৈরি করে ফেলুন। এরপর পাটায় সামান্য ছেঁচে নিন। এই পুটলি রেখে দিন আটা, ময়দা বা বেসনের কৌটায়। ব্যাস, পোকার চিন্তা নেই। থাকুন নিশ্চিন্তে।
ট্রিকস – ০৮ বোরিক পাউডার রান্নাঘরের তাক কিংবা যে স্থানে আটা, ময়দা, বেসন সংরক্ষন করবেন সেসব স্থানের আশেপাশে বোরিক পাউডারের ছোট প্যাকেটগুলোর মুখ খুলে রেখে দিন। পোকামাকড় পালাবে।

ট্রিকস – ০৯ শুকনো মরিচ শুকনো মরিচ সরিষার তেলে ভেজে নিন। মরিচ ভেঙ্গে এর ভেতরের বীজগুলো একটা পরিষ্কার পাতলা সুতি কাপড়ে ভরে পুটলি করে কৌটায় রেখে দিন। শুকনো মরিচের ঝাঁঝালো গন্ধে পোকামাকড় কখনোই হবে না।
ট্রিকস – ১০ দারচিনি দারচিনি ভেজে নিন। এরপর পাটায় পিষে বা ব্লেন্ডারে গুড়ো করে ছোট ছোট পরিষ্কার কাপড়ে রেখে কয়েকটি পুটলি বেধে ফেলুন। আটা, ময়দা, বেসনের কৌটায় ফেলে রাখুন এমন দুই কি তিনটে পুটলি। পোকার চিন্তা করতে হবে না। আটা, ময়দা ও বেসনের পাশাপাশি সুজিও কিন্তু উপরের এই কৌশলগুলো অবলম্বন করে সংরক্ষন করতে পারবেন। কখনোই মুখ খোলা অবস্থায় আটা, ময়দা, বেসন,

সুজি – এসব সংরক্ষন করবেন না। পরিস্কার, মুখ বন্ধ ও শুকনো কৌটায় সংরক্ষন করুন। খুব বেশি দিন যদি সংরক্ষন করতে হয় সেক্ষেত্রে চালনিতে চেলে নিয়ে কড়া রোদে আটা, ময়দা, বেসন, সুজি শুকিয়ে সংরক্ষন করুন। রোদে শুকালে এসবে থাকা ময়েস্ট দূর হয়ে যায়, ফলে বেশি দিন পর্যন্ত ভালো থাকে। ভেজে নিলেও অবশ্য ময়েস্ট দূর হয়। এছাড়াও রান্নাঘর ও এসব খাদ্য উপাদান সংরক্ষনের স্থান নিয়মিত পরিষ্কার ও পরিচ্ছন্ন রাখুন।

About Susmita Roy

Check Also

৬টি সহজ টিপস, যা আমরা অনেকেই জানি না!

৬টি সহজ টিপস, যা আমরা অনেকেই জানি না!

1. সহজেই ভালো-খারাপ ডিম চেনার উপায় : শহরের এই কাজের চাপে বারে বারে দোকানে যাওয়া …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *