আয়ুর্বেদিক উপাদান দিয়ে ব্রণ কমান রাতারাতি!

গরমে ত্বক নিয়ে অনেকেই দুশ্চিন্তায় থাকেন। ধুলা, ঘাম, দূষণের সঙ্গে তাল মিলিয়ে মুখে দেখা দেয় ব্রণ। ব্রণ সারাতে অনেকেই ভরসা রাখেন ঘরোয়া পদ্ধতির উপর। বিভিন্ন আয়ুর্বেদিক উপাদানে ব্রণ দ্রুত সারাতে পারেন- 1. তুলসি আর হলুদ: এই দুটি উপাদান দিয়েই বানিয়ে নিন

ব্রণের ওষুধ। কাঁচা হলুদ দু’চামচ পরিমাণ বেটে নিন। একইভাবে ২০-২৫টি তুলসি পাতা ভালো করে ধুয়ে বাটুন। তুলসি পাতা বাটা আর কাঁচা হলুদ বাটা একসঙ্গে মিশিয়ে ব্রণের উপরে লাগিয়ে রাখুন, শুকিয়ে গেলে ধুয়ে ফেলবেন। প্রতিদিন বারতিনেক লাগাতে হবে। সারাদিনের জন্য

একবারে বানিয়ে কৌটায় ভরে ফ্রিজে রেখে দিন। 2. নিমপাতা আর গোলাপজল: নিমপাতা খুবই ভালো অ্যান্টিসেপটিক আর গোলাপজল ত্বক
স্নিগ্ধ আর সতেজ রাখে। পাতাসমেত গোটা পাঁচেক নিমের ডাল ভেঙে নিন। পাতাগুলো ধুয়ে মিনিট দুয়েক ফোটান। তারপর পানি থেকে পাতা

তুলে মিক্সিতে বা শিলে বেটে নিন। এবার পাতা বাটায় দু’ চাচামচ পরিমাণ গোলাপজল মেশান। এই মিশ্রণটা ব্রণের উপরে লাগিয়ে শুকাতে দিন। শুকিয়ে গেলে ধুয়ে ফেলুন। ব্রণ দ্রুত শুকাবে, ব্যথাও কমবে। 3. মধু: ব্যাকটেরিয়া নষ্ট করার গুণ রয়েছে মধুতে। এক চা-চামচ খাঁটি মধুতে

অল্প তুলা ডুবিয়ে ব্রণের উপরে লাগিয়ে রেখে দিন। আধা ঘণ্টা পরে ধুয়ে ফেলুন। দিনে কয়েকবার লাগালেই ব্রণ কমে যাবে। 4. লেবু আর পানি: লেবুর ভিটামিন সি ব্রণ কমাতে দারুণ কাজ করে। দুটা পাতিলেবু চিপে রস বের করে নিন। এই রসে দু’চামচ পানি মেশান। মিশ্রণে তুলা

ভিজিয়ে ব্রণের উপরে লাগিয়ে দিন। খুব দ্রুত ব্রণ শুকিয়ে যাবে। তবে সেনসিটিভ ত্বক হলে লেবুর রস এড়িয়ে চলাই ভালো, কারণ লেবুর রস থেকে সেনসিটিভ ত্বকে জ্বালা করতে পারে।

About Susmita Roy

Check Also

চুলের যত্নে অ্যালোভেরার হেয়ার স্পা

চুলের যত্নে অ্যালোভেরার হেয়ার স্পা!

চুল নিয়ে সারা বছর চুল পড়া, খুশকি থেকে শুরু করে চুলের রুক্ষ্ম ভাবের সমস্যায় ভোগেন …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *