রক্তদানের আগে ও পরে যে বিষয়গুলো অবশ্যই খেয়াল রাখা জরুরী!

রক্তদানের আগে ও পরে যে বিষয়গুলো অবশ্যই খেয়াল রাখা জরুরী- রক্তদান জীবন দান, কথাটার সঙ্গে আমরা সকলেই পরিচিত। অথচ রক্তদানের প্রয়োজনীয়তা সম্পর্কে আমরা অনেকেই সচেতন না। রক্ত দেওয়ার মত সতায়তার মানসিকতা এখনো অনেকের মধ্যে
গড়ে ওঠেনি। 2021 সাল থেকে থেকে জুন মাসের ১৪ তারিখ পালিত হয়ে

আসছে সব রক্তদাতাদের উদ্দেশ্যে। রক্তদান সম্পর্কে সচেতনতা গড়ে তুলতে প্রতি বছর এই দিনটিতে ওয়ার্ল্ড ব্লাড ডোনার ডে পালিত হয়ে আসছে। প্রতি দিন বিশ্বে রক্তের অভাবে বহু মানুষের প্রাণ গেলেও সুস্থ মানুষেরা অনেকেই রক্তদান সম্পর্কে ভুল ধারণা কাটিয়ে উঠতে পারেননি। রক্ত দেওয়ার আগে ও পরে সবার উচিত কিছু বিষয় খেয়াল রাখা। চলুন জেনে নেওয়া যাক।

রক্ত দেওয়ার আগে যে বিষয়গুলি খেয়ল রাখা দরকার:
১. রক্ত দিতে যাওয়ার আগে দেখে নিন আপনার জ্বর বা সর্দি, কাশি আছে কিনা। ২. কোনও অ্যান্টিবায়োটিক বা ইনসুলিন ট্রিটমেন্ট যাতে না চলে সে বিষয়ে নিশ্চিত করুন। ৩.হার্টের সমস্যা, হাইপার টেনশন, ক্যান্সারের কোনও উপসর্গ, কিডনির অসুখ, বা কোনরকম ক্রনিক অসুখ থাকলে রক্ত দেওয়া থেকে বিরত থাকুন। ৪. ৬ মাসের মধ্যে

কোনওরকম অস্ত্রোপচার হলে রক্ত না দেওয়াই ভালো। ৫.রক্ত দেওয়ার ২৪ ঘণ্টার মধ্যে কোনও ভ্যাকসিন নেওয়া যাবে না। ৬.অন্তঃস্বত্ত্বা অবস্থায় রক্ত না দেওয়াই ভালো। ৭.কোন ওষুধ নিয়মিত সেবন করলে রক্তদান করবেন না। সেই সঙ্গে রক্তের জন্য কোনও ওষুধ খেলে রক্তদান করবেন না।

রক্তদানের পর যে বিষয়গুলি মনে রাখা দরকার:
১. রক্তদানের পর লাগিয়ে দেওয়া স্ট্রিপ ব্যান্ডেজ অন্তত কয়েক ঘণ্টা রাখুন। ২.পর্যাপ্ত পরিমাণ পানি পান করুন। ৩.ত্বকের র‌্যাশ এড়ানোর জন্য ব্যান্ডেজ খোলার পর ভালো করে সাবান পানি দিয়ে পরিষ্কার করে নিন। ৪. ওই দিন ভারী কিছু তুলবেন না বা এক্সার সাইজ না করাই ভালো। ৫. যদি সূঁচ ফোটানো জায়গা থেকে রক্তপাত হতে থাকে তা হলে ক্ষতের উপর চাপ দিয়ে হাত সোজা করে

৫-১০ মিনিট উপরের দিকে তুলে রাখুন, যতক্ষণ না রক্তপাত বন্ধ হচ্ছে। ৬. রক্ত দেওয়ার পর মাথা ঘুরলে বা কোনও রকম শারীরিক অস্বস্তি হলে কিছু ক্ষণ বসে থাকুন বা শুয়ে থাকুন। যতক্ষণ না সুস্থ বোধ করছেন।

About Susmita Roy

Check Also

হৃদরোগ ছাড়াও আরো যেসব কারণে বুকে ব্যথা হতে পারে

হৃদরোগ ছাড়াও আরো যেসব কারণে বুকে ব্যথা হতে পারে

হৃদরোগ আজকাল বয়স্কদের ছাড়াও অপ্রাপ্ত বয়স্কদের হয়ে থাকে। দিন দিন এই রোগে আক্রান্ত হয়ে মৃতের …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *