রান্না ঘরের সব কাজ ঝটপট শেষ করার সেরা ১০টি টিপস জেনে নিন..

আপনি গৃহবধূ হন অথবা ক’র্মরতা, রান্নাঘরে (kitchen) আপনাকে কিছু না কিছু কাজ ক’রতেই হয়। কিন্তু বাড়ির ও বাইরের সব কাজ সেরে
রান্না করা এবং রান্নাঘর প’রিষ্কার করা মোটেও সহজ কাজ নয়। তবে ছোট্ট ছোট্ট কয়েকটি টিপস (tips) মাথায় রাখলে কাজটা অনেকটা

সহজ হয়ে যাবে। কী করলে চটপট রান্না করে ফেলতে পারবেন, কী করলেই বা রান্নাঘর (kitchen) প’রিষ্কার করাটা বেশ খানিকটা সহজ হয়ে যাবে–সে বিষয়েই আজ কয়েকটি টিপস (tips) দেবো। দেখে নিন চট করে, কাজে লাগতে পারে।

রান্নাঘরে চটপট কাজ সারার দারুণ টিপস চলুন তবে জেনে নেওয়াা যাক-

১। আম’রা আজকাল আর কেউই শিলে মশলা বাটি না, সবাই মশলা বাটার জন্য মিক্সার-গ্রাইন্ডার ব্যবহার করি। কিন্তু কিছুদিন পরেই রান্নাঘরের এই গ্যাজেটটির ব্লেডগুলো ভোঁতা হয়ে যায় আর মশলাও ঠিকভাবে বাটা হয় না। সেক্ষেত্রে খানিকটা নুন মিক্সারের জারে নিয়ে একবার গ্যাজেটটি চালিয়ে দিন। দেখবেন আবার নতুনের মতো ধা’রালো হয়ে যাবে ব্লেড।
২। আলু ভাজার সময়ে বা তরকারিতে ব্যবহার করার সময়ে অনেকেই আগে থেকে আলু কে’টে রাখেন। কিন্তু কাটা আলু কিছুক্ষণ পরেই কেমন কালচে হয়ে যায়। কে’টে রাখা আলু যাতে কালচে না হয়ে যায়, তাই তা ঠান্ডা জলে ডুবিয়ে রাখু’ন (tips)।
৩। রসুন ছাড়ানো একটা ঝকমা’রি। রান্নাঘরে (kitchen) অনেকটা সময় ন’ষ্ট হয় রসুনের খোসা ছাড়াতে। এক কাজ করুন, একস’ঙ্গে যদি অনেকটা রসুনের খোসা ছাড়াতে হয় তাহলে আগে খোসাশুদ্ধ রসুন মাথার দিক থেকে একটু কে’টে নিন এবং মাইক্রোওয়েভ সেফ বাটিতে ২০ সেকেন্ড মতো ঘুরিয়ে নিন। দেখবেন চটপট রসুনের খোসা ছে’ড়ে যাবে।

৪। অনেকেই এখন রান্নাঘরে (kitchen) কাজ তাড়াতাড়ি সারার জন্য নানা রকম ইলেক্ট্রিনিক গ্যাজেট ব্যবহার করেন। ইলেক্ট্রিক কেটলিও সেরকমই একটি গ্যাজেট। তবে ইলেক্ট্রিক কেটলিতে জল গরম করার পরে জলের একটা আস্তরণ প’ড়ে যায় যা দে’খতে তো খা’রাপ লাগেই, আর শ’রীরের পক্ষেও ভাল না। সম পরিমাণে জল ও ভিনিগার মিশিয়ে কেটলিতে রেখে রেখে দিন সারারাত (tips)। পরদিন দেখবেন কেটলি আবার ঝকঝক করছে।
৫। মাছ-মাংস ধোওয়ার পর হাতে একটা বিশ্রী গন্ধ হয়। সাবান দিয়ে হাত ধুলেও অনেকসময়ে ওই গন্ধ থেকে যায়। মাছ-মাংস বা পেঁয়াজ-রসুন ধোওয়া বা কাটার পর হাতে একটু টুথপেস্ট লা’গিয়ে মিনিট পাঁচেক অপেক্ষা করুন। এরপরে ভাল করে সাবান দিয়ে হাত ধুয়ে নিন। বুঝতেই পারবেন না যে কিছুক্ষণ আগে আপনার হাতে বাজে গন্ধ ছিল। ৬। অনেক সময় লুচি ভাজার সময়ে তা ঠিকভাবে ফোলে না। ভাজার দশ মিনিট আগে বেলে রাখা লুচি ফ্রিজে রেখে দিন। এর পরে ভাজুন, দেখবেন খুব বেশি তেলও লাগবে না, আর লুচি ফুলবেও বেশ ভাল।

৭। মিক্সারে পেয়াজ-রসুন বাটলে, মাজার পরেও অনেক সময় উগ্র গন্ধ যায় না। এক টুকরো পাতিলেবু আর সামান্য জল মিক্সারের জারে দিয়ে একবার গ্যাজেটটি চালিয়ে দিন। এরপরে জল দিয়ে ধুয়ে নিন। দেখবেন কোনও খা’রাপ গন্ধই আর থাকবে না (tips)।
৮। বাজার থেকে ডিম আনার সময়ে আম’রা বুঝতে পারি না যে ডিমটি ফ্রেস নাকি বাসি। ডিম ফ্রেশ নাকি বাসি তা জা’নার জন্য একটি গ্লাসে জল নিয়ে ডিম ডুবিয়ে দিন। যদি ডিম গ্লাসের নীচের দিকে চলে যায় তাহলে বুঝবেন যে ডিমটি ফ্রেশ, কিন্তু ডিম যদি ভেসে ওঠে তাহলে বুঝবেন যে আপনি যে ডিম এনেছেন তা বাসি।

৯। অনেক রান্নায়, বিশেষ করে মাংস বা ডিম রান্না ক’রতে হলে বেশ খানিকক্ষণ পেঁয়াজ ভাজতে হয়। না হলে কাঁচা গন্ধ বেরোয়। কিন্তু পেঁয়াজ ভাজতে বেশ সময় লাগে। রান্নাঘরে যদি এই কাজটির জন্য বেশি সময় কাটাতে না চান, তাহলে পেঁয়াজ ভাজার আগে কাটা পেয়াজে সামান্য নুন মাখিয়ে নিন। এরপরে ভাজুন। দেখবেন পেঁয়াজ তাড়াতাড়ি ভাজাও হয়ে যাবে আর নরমও থাকবে।
১০। রান্নাঘরে (kitchen) যেহেতু জলের কাজ বেশি হয় কাজেই সিঙ্ক, কল বা স্ল্যাবে জলের দাগ প’ড়ে যায় যা দে’খতে খুব খা’রাপ লাগে। ভিনিগারের স’ঙ্গে পরিমাণ মতো বেকিং সোডা মিশিয়ে একটি পেস্ট তৈরি করে নিন এবং যেখানে যেখানে জলের দাগ হয়ে গেছে সেখানে লা’গিয়ে রাখু’ন (tips)। এক দিন পরে ভেজা কাপড় দিয়ে মুছে নিন। দেখবেন আবার নতুনের মতো ঝকঝকে হয়ে যাবে। খেয়াল রাখবেন যখন পেস্টটি লা’গিয়ে রাখবেন, তখন যেন সিঙ্ক বা কলে জল না প’ড়ে।

About Susmita Roy

Check Also

চাল সংরক্ষণের সঠিক নিয়ম, আর হবে না পোকা ধরার সমস্যা!

চাল সংরক্ষণের সঠিক নিয়ম, আর হবে না পোকা ধরার সমস্যা!

ভারতীয় ও বাংলাদেশীয় পরিবারে এটি একটি সাধারণ ঐতিহ্য যে আমরা সারা বছরের জন্য রেশন সংরক্ষণ …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *