লিভার সুস্থ্য রাখবে এই ৪টি খাবার!

মানবদেহের খুবই গুরুত্বপূর্ণ একটি অংশ হচ্ছে লিভার। যার ক্ষতি হলে মৃত্যুও ঘটে। লিভার আমাদের শরীরে জমে থাকা সব ক্ষতিকারক টক্সিনকে ছেঁকে শরীর থেকে বের করে দেয়। যদি কোনোভাবে লিভার তার কার্যক্ষমতা হারিয়ে ফেলে, তবে শরীরে জমে যাওয়া টক্সিন

শরীরেই থেকে যাবে। যার ফলে শরীরের অন্যান্য অঙ্গপ্রত্যঙ্গ একে একে বিকল হতে শুরু করবে। এছাড়াও আমাদের দেহের বিভিন্ন কাজের সঙ্গে জড়িত এই লিভার। যেমন- রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধি, হজম শক্তি, মেটবলিজম, দেহে পুষ্টি জোগায়। লিভার যদি সুস্থ্ থাকে তাহলে শরীর থেকে ক্ষতিকর টক্সিন বের করার সঙ্গে সঙ্গে রক্ত প্রবাহ নিয়ন্ত্রণ করে, দেহের সব অংশে পুষ্টি জোগায়। নিশ্চয়ই

বুঝতে পেরেছেন, আমাদের সুস্থভাবে বেঁচে থাকার জন্য লিভার সুস্থ রাখা কতোটা জরুরী। লিভার সুস্থ্ রাখার জন্য এমন কিছু খাবার খাওয়া উচিত, যা আমাদের লিভারকে সুস্থএবং স্বাভাবিক রাখবে।দৈনন্দিন খাদ্যাভ্যাসে মৌলিক কিছু পরিবর্তন এনে লিভারকে সুস্থ্ রাখা সম্ভব।

চলুন জেনে নেয়া যাক যে চার খাবারে সুস্থ থাকবে লিভার-
1. আপেল- প্রতিদিনের খাদ্যতালিকায় ১ টি করে আপেল রাখুন যা লিভারকে সুস্থ রাখবে। আপেলের পেক্টিন, ফাইবার দেহের পরিপাক নালী হতে টক্সিন ও রক্ত হতে কোলেস্টরোল দূর করে, সঙ্গে লিভারকেও সুস্থ রাখে। আপেলে আছে আরও কিছু উপাদান- ম্যালিক এসিড

যা প্রাকৃতিক ভাবেই রক্ত হতে ক্ষতিকর টক্সিন দূর করে। যেকোনো ধরণের আপেলই দেহের লিভারের জন্য ভালো। তাই লিভার সুস্থ রাখতে প্রতিদিন ১ টি করে আপেল খান।
2. হলুদ- হলুদ সোনালি মশলা নামেও পরিচিত। এটি লিভারের সবচেয়ে বেশি উপকার করে। কারণ এই মশলাটি দেহ থেকে খাদ্য বিষ নিঃসরণের কাজ করে যেসব এনজাইম সেসবকে সহায়তা করে। ঠিক এ কারণেই ভারতীয় উপমহাদেশের রান্নায় সবসময়ই হলুদ ব্যবহার

করা হয়।লিভারকে সুস্থ রাখতে চাইলে প্রতিদিন এক গ্লাস হালকা গরম জলে এক চা চামচ হলুদ মিশিয়ে পান করুন।
3. লেবু- লেবুতে আছে অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট উপাদান যা দেহের লিভার পরিষ্কার রাখতে সাহায্য করে এবং ডি লিমনেন উপাদান লিভারে এনজাইমকে সক্রিয় করে। তাছাড়া লেবুর ভিটামিন সি লিভারে বেশি করে এনজাইম তৈরি করে যা হজম শক্তির জন্য বেশ উপযোগী। লেবুর মিনারেল লিভারের নানান পুষ্টি উপাদানগুলো শোষণ করার শক্তি বৃদ্ধি করে। বাসায় লেবুজল পান করুন এবং যেকোনো সময়

পানের জন্য লেবুজল বানিয়ে রাখুন। প্রতিদিন লেবুজল পান করুন, চাইলে সঙ্গে মধুও মিশিয়ে নিতে পারেন।
4. সবুজ চা- এন্টি-অক্সিডেন্টে সমৃদ্ধ সবুজ চা। কেটেচিন নামক এক প্রকার উপাদান রয়েছে, যা লিভারের সমস্যা দূর করে। সবুজ চা শুধু স্বাদেই মজা যে তা নয়, এটি ডায়েট এর জন্য সব থেকে ভালো খাদ্য।

About Susmita Roy

Check Also

হঠাৎ ধূমপান ছেড়ে দিলে কী হয় জানেন

হঠাৎ ধূমপান ছেড়ে দিলে কী হয় জানেন? জেনে নিন বিস্তারিত..

দীর্ঘদিনের ধূমপানের অভ্যাস হঠাৎ ছেড়ে দিলে শরীর কি তা মেনে নেয়–এমন প্রশ্ন অনেক ধূমপায়ীর মনেই …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *