এই পাতার জাদুতেই সারবে অনেক জটিল রোগ!

প্রাচীনকাল থেকেই বিভিন্ন রোগ সারাতে ব্যবহার হয়ে আসছে ভেষজ উপাদান। কারি পাতা তেমনি একটি উপকারী ভেষজ গাছ। যদিও কারি পাতা বিভিন্ন রান্নায় সুগন্ধি হিসেবে ব্যবহার করা হয়ে থাকে। তবে এর স্বাস্থ্য উপকারিতাও অতুলনীয়। এই পাতায় প্রচুর পরিমাণে ক্যালশিয়াম,

পটাশিয়াম, আয়রন এবং বিভিন্ন ধরনের ভিটামিন থাকে। বিশেষ করে এই পাতায় পাওয়া যায় ভিটামিন এ, বি, সি এবং বি২। এই পাতাটি রান্নায় নিময়িত ব্যবহার করলে এসব উপাদানের ঘাটতি তো পূরণ হয়ই, সঙ্গে বাড়ে রোগ প্রতিরোধ শক্তিও। এই পাতা বিভিন্ন কঠিন রোগ সারাতে জাদুর মতো কাজ করে।

চলুন তবে জেনে নেয়া যাক কোন কোন রোগ সারাতে কাজে লাগে এই পাতা-

1. হজমের কার্যক্ষমতা বাড়ায়- কারি পাতা হজমের জন্য ভালো। এতে থাকা এনজাইম কার্বোহাইড্রেট, চর্বি এবং প্রোটিনকে ভেঙে দেয়। এতে সহজে খাবার হজম হতে সাহায্য করে।
2. ডায়াবেটিস নিয়ন্ত্রণ রাখতে- কারি পাতায় প্রচুর পরিমাণে আয়রণ, তামা এবং জিঙ্ক থাকে। যা রক্তে শর্করার মাত্রা হ্রাস করতে সহায়তা করে। তাই ডায়াবেটিস রোগীদের খাবারে কারি পাতা অন্তর্ভুক্ত করতে পরামর্শ দেন বিশেষজ্ঞরা।

3. ডায়রিয়া এবং কোষ্ঠকাঠিন্য দূর করে- কারি পাতা পানিতে সিদ্ধ করে সেই পানি পান করুন। আবার এটির পেস্ট তৈরি করেও খাবারে মিশিয়ে খেতে পারেন। এতে ডায়রিয়া এবং কোষ্ঠকাঠিন্য দুটোতেই উপকার পাবেন।
4. রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ায়- কারি পাতায় অ্যান্টিব্যাকটিরিয়াল বৈশিষ্ট্য রয়েছে। যা আপনার রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়াতে সহায়তা করবে। অ্যান্টিবায়োটিক কোর্স চলাকালীন কারি পাতা খাওয়ার পরামর্শ দেন বিশেষজ্ঞরা।

5. চোখের জন্য- কারি পাতায় থাকা ভিটামিন এ চোখের দৃষ্টি উন্নত করে। ভিটামিন এ তে ক্যারোটিনয়েড রয়েছে। যা কর্নিয়ার ক্ষতির ঝুঁকি কমায়। অন্যদিকে ভিটামিন এ রাত অন্ধত্ব, দৃষ্টিশক্তি হ্রাস এবং চোখে ছানি গঠনের ঝুঁকি কমিয়ে দেয়।
6. চুলের জন্য- চুলের জন্য অন্যতম সেরা চিকিৎসা হলো নারকেল তেল এবং কারি পাতা। এর জন্য কয়েকটি কারি পাতা নারকেল তেলে সিদ্ধ করে নিন। এবার এই তেল চুলে লাগান নিয়মিত। চুল পড়া, খুশকি, রুক্ষতা সব সমস্যা সমাধান হবে। এই তেল তিন থেকে ছয় মাস পর্যন্ত সংরক্ষণ করতে পারবেন।

7. সকালের অসুস্থতা বা বমি বমি ভাব দূর করে- কারি পাতা খাওয়া বমি বমি ভাব বা সকালের অসুস্থতা দূর করতে সহায়তা করে। সাধারণত গর্ভবতী নারীদের এ ধরনের সমস্যা বেশি দেখা যায়। তাই গর্ভাবস্থায় বিভিন্ন খাবারের সঙ্গে কারি পাতা খাওয়ার পরামর্শ দেয়া হয়।

About Susmita Roy

Check Also

যে কারনে মহিলাদের হাঁটুর সমস্যা বেশি হয়!

যে কারনে মহিলাদের হাঁটুর সমস্যা বেশি হয়!

আজকাল বেশিরভাগ মহিলাই মহিলাদের হাঁটু ব্যথার অভিযোগ করেন। সে বাড়িতে থাকুক বা কর্মজীবী ​​নারী। আজকাল …

Leave a Reply

Your email address will not be published.