বিয়ে বাড়ির মতো দুর্দান্ত স্বাদের ভেজ ডাল বানিয়ে ফেলুন সহজ পদ্ধতিতে

আমাদের মধ্যে অনেকেই ভোজন রসিক হয় । অর্থাৎ তাদের খাবার অত্যন্ত প্রিয় হয়। রাস্তাঘাটে যেকোনো জায়গায় বেরোলে যে জিনিসটি তারা ভুলে না সেটি হলে খাবার। এই সেই সমস্ত খাবার বা ভোজন রসিক মানুষদের জন্য একটি সুসংবাদ ।কারণ আজকের এই প্রতিবেদনের মাধ্যমে আমি এমন এক ধরনের রেসিপি

আপনাদের সামনে নিয়ে এসেছি যা অন্যান্য বাকি সমস্ত রান্নার স্বাদ কে টে-ক্কা দেবে । আপনি নিশ্চয়ই ভাবছেন যে আমি এই মুহূর্তে কোন খাবার রান্নার কথা বলতে চলেছি? জানাবো আপনাদের বিস্তারিত।ছোট অনুষ্ঠান বাড়ি হোক বা বাড়ির খাবারের পরিবেশন করতে পারেন মিলবে অনেকখানি প্রশংসা । সময় খুব কম লাগে তার পাশাপাশি খুব অল্প ব্যয় করা সম্ভব । তাই এরপর থেকে খাবার জনিত

কোন সমস্যা থাকলে এটি আপনি বাড়িতে তৈরি করে পরিবেশন করতে পারেন অনায়াসে ।আমি এই মুহূর্তে যে রেসিপির কথা বলতে চলেছি সেটি বিয়েবাড়িতে কমবেশি ব্যবহার হয়ে থাকে । তাই এটি বাড়িতে আপনি চেষ্টা করলে বিফলে যাবেন না । আমি এই মুহূর্তে বিয়ে বাড়ির মতন ডাল বা মুগের ডাল তৈরি করার কথা বলছি। প্রথমে কিছুটা পরিমাণ মুগডাল করে নিয়ে ভেজে নেব এবং তার মধ্যে ভাজা হয়ে যাবার পর তাকে দু তিনবার জল দিয়ে ধুয়ে নেব। পুনরায় সেটাকে আবার জল দিয়ে সেদ্ধ করে দেবো । কিন্তু তার মধ্যে

যোগ করে দেবো সামান্য পরিমাণ নুন এবং দুটো শুকনো কাঁচা লঙ্কা ।১০ থেকে ১৫ মিনিট পর্যন্ত ঢাকা দিয়ে রেখে দিলে ডাল সেদ্ধ হয়ে আসবে । যখন অল্প পরিমাণে সেদ্ধ হয়ে আসবে তখন তার মধ্যে যোগ করে দেবো কড়াইশুঁটি এবং সেটি সম্পূর্ণ সেদ্ধ করুন । সম্পূর্ণ রকম ভাবে সেদ্ধ হয়ে গেলে সেটা অন্য একটি পাত্রে তুলে রাখবো । অপরদিকে ভাজা মশলা তৈরি করার জন্য করে কিছু পরিমাণ জিরা ধনে তেজপাতা এলাচ লঙ্কা নিয়ে ভেজে নেব । এবং তার মধ্যে যোগ করে দেবো আগে থেকে কেটে রাখা ফুলকপি এবং বিভিন্ন সবজি ।

যেমন গাজর ইত্যাদি । সমস্ত উপকরণ গু-লি ভেজে নেবো এবং কিছুক্ষণ পর তার মধ্য দিয়ে দেবো সামান্য পরিমাণ নুন এবং হলুদ তারপর যোগ করে দেবো তার মধ্যে কিছুটা পরিমান কাজু এবং কিসমিস । পুনরায় সমস্ত উপকরণ গু-লি কে ভালো মতন ভেজে নেবো । এবং তার মধ্যে যোগ করে দেবো আগে থেকে সেদ্ধ করে রাখা মুগের ডাল । এমতাবস্থায় দেড় কাপ গরম জল দিয়ে সেটিকে ঢাকা দিয়ে পুনরায় ফুটতে দেব এবং ১০ থেকে ১৫ মিনিট পর গ্যাসের ফ্লেম ব-ন্ধ করলেই হয়ে যাবে বিয়ে বাড়ির মতন ডাল বা মুগের ডাল।

About Susmita Roy

Check Also

চাল সংরক্ষণের সঠিক নিয়ম, আর হবে না পোকা ধরার সমস্যা!

চাল সংরক্ষণের সঠিক নিয়ম, আর হবে না পোকা ধরার সমস্যা!

ভারতীয় ও বাংলাদেশীয় পরিবারে এটি একটি সাধারণ ঐতিহ্য যে আমরা সারা বছরের জন্য রেশন সংরক্ষণ …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *