অবশিষ্ট ভাত পান্তা না করে বানিয়ে ফেলুন মুখরোচক খাবার!

মাপমতো রান্না কোনো ঘরেই হয় না। কোনোদিন কম তো কোনোদিন বেশি। বিশেষ করে রাতের খাবারে ভাত থাকলে অনেক সময় কিছুটা ভাত বেঁচে যায়। পরদিন সেই পান্তা বা বাসি ভাত খাওয়া হয় অথবা

হয় না। ফ্রিজে জমতে জমতে একটা সময় হতো ফেলেই দেয়া হয়। এটিও এক ধরনের অপচয়। চলুন জেনে নেয়া যাক বাসি ভাতের অপচয় না করে সুন্দর সুন্দর খাবার তৈরির রেসিপি-

1. ভাত-ডাল দিয়ে সুস্বাদু রুটি- ফ্রিজে বাসি ভাত আর ডাল জমলে ফেলে না দিয়ে এই খাবারটি তৈরি করতে পারেন। সেজন্য বাসি ভাত ও ডাল ব্লেন্ডারে দিয়ে ভালো করে পিষে ফেলুন। একদম মসৃণ আর থকথকে একটা পেস্ট হবে। পাতলা হয়ে গেলে ময়দা মিশিয়ে ঘন করুন। এরপর মাঝে দিন পেঁয়াজ, কাঁচা মরিচ কুচি, সামান্য ভাজা জিরার গুঁড়া, অল্প লবণ, ধনেপাতা কুচি৷ এবার ভালো করে

মিশিয়ে নিন। প্যানে অল্প তেল দিয়ে এই মিশ্রণ থেকে প্যানকেক বা দোসার মতো বানিয়ে ভাজুন। প্যানকেকের মতোমোটা বা দোসার মতো পাতলা, দুটোই করতে পারেন। একপাশ সোনালি ও মচমচে হলে উল্টে দিন। পরিবেশন করুন করুন সস বা চাটনির দিয়ে।
2. রাইস অ্যান্ড চীজ বল- বাসি ভাতকে গরম করে একটু চটকে নিন। আপনার পছন্দমতো যেকোনো মশলা দিন স্বাদের জন্য। ভেতরে

চিজের পুর দিয়ে গোল গোল বল তৈরি করুন। এই বল ডিমে ডুবিয়ে বিস্কিটের গুঁড়ায় গড়িয়ে নিন। সোনালি করে ভেজে তুলুন। ব্যাস হয়ে গেলো দারুণ সুস্বাদু স্ন্যাক্স।
3. স্টাফড ক্যাপসিকাম কাপ- ভাতকে মাখিয়ে নিন পেঁয়াজ, লঙ্কা, ধনেপাতা ও আপনার পছন্দের মশলা দিয়ে। এবার ক্যাপসিকামকে

মাঝ বরাবর কেটে নিন। ভেতর থেকে বীজ বের করে ভাতের মিশ্রণ ভরুন। ওপরে মোটা করে চিজ ছড়িয়ে দিন, এই কাপগুলো ওভেনে বেক করুন সোনালি হয়ে যাওয়া পর্যন্ত। তৈরি হয়ে গেল আরেকটি অসাধারণ খাবার৷

About Susmita Roy

Check Also

দোকানের মতো পারফেক্ট মিষ্টি দই ঘরেই তৈরি করে নিন!

দোকানের মতো পারফেক্ট মিষ্টি দই ঘরেই তৈরি করে নিন!

দই কম বেশি সকলেরই প্রিয় খাবার। একটু ভারী খাবারের পর দই খাওয়া অনেকেই পছন্দ করেন, …

Leave a Reply

Your email address will not be published.