কেমিক্যাল ছাড়াই চুল রঙ করতে কাজে লাগান প্রাকৃতিক উপাদান

চুল (hair) নিয়ে পরিচর্যা করতে কে না পছন্দ করেন। পুরুষ নারী নির্বিশেষে সুন্দর কেশের অধিকারী সকলেই হতে চান। তবে সুন্দর রঙিন চুল পেতে চাইলেও, অনেকে ব্যবহার করতে চান না কেমিক্যাল প্রোডাক্ট। তবে উপায়? চিন্তা করার কোন কারণ নেই, চুটকিতেই

পেয়ে যান এই সমস্যার সমাধান। চলুন তবে জেনে নেওয়া যাক- মেহেন্দীঃ কোনো রকম ক্ষতিকর পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া ছাড়াই চুলকে সুন্দর এবং রঙিন করে তোলে মেহেন্দী। সেইসঙ্গে খুশকি দূর করতে, চুলের আগা ফাটা রোধ করে, চুলকে ঝলমলে করতে, মজবুত করতে এবং চুল পরা কমাতে সাহায্য করে মেহেন্দী। বীট রুটঃ প্রথমে বীট রুট ছেঁচে বা ব্লেন্ড করে রসটা চিপে বের করে নিতে হবে। তারপর

সেই রস জ্বালিয়ে ঘন এবং ঠান্ডা করতে হবে। এবার সেই রসের সঙ্গে পরিমাণ মত নারকেল তেল মিশিয়ে ভালো করে চুলে লাগিয়ে রাখুন। ১ থেকে দেড় ঘন্টা পর শ্যাম্পু করে কন্ডিশনার ব্যবহার করলেই, পাবেন সুন্দর লাল রঙের চুল। কফিঃ প্রথমে গরম জলে কফি গুলে হেয়ার কন্ডিশনার দিয়ে একটা গাঢ় মিশ্রণ তৈরি করতে হবে। এরপর সেটা চুলে লাগিয়ে দেড় থেকে ২ ঘণ্টা পর শুধু জল দিয়ে

ধুয়ে নিলেই পার্থক্যটা বুঝতে পারবেন। চাঃ ৩ কাপ জলে হাফ কাপ চা পাতা মিশিয়ে ভালো করে ফুটিয়ে জল এক বা হাফ কাপ হয়ে এলে নামিয়ে নিন। এরপর সেটিকে ভালো করে ঠাণ্ডা করে চুলে মেখে চল্লিশ মিনিট রাখুন। তারপর শ্যাম্পু করে নিন। লবঙ্গ ও দারুচিনিঃ লবঙ্গ ও দারুচিনি গুঁড়ো করে তাতে সামান্য নারকেল তেল মিশিয়ে পেস্ট বানিয়ে চুলে লাগাতে হবে। তারপর তা শুকিয়ে গেলে, শ্যাম্পু

করে নিন। গাজরঃ প্রথমে গাজর ধুয়ে রস করে নিতে হবে। তারপর তাতে পরিমাণ মত নারকেল মিশিয়ে ভালো করে ফোটাতে হবে। তারপর তা ঠান্ডা হয়ে এলে আপেল সিডার ভিনেগার মিশিয়ে চুলে ভালো করে লাগিয়ে শাওয়ার ক্যাপ চুল ঢেকে রাখুন। একঘণ্টা রেখে শ্যাম্পু করে নিন। লেবুঃ লেবুর রসে পরিমাণ মত নারকেল মিশিয়ে চুলে লাগাতে হবে। তারপর দুঘন্টা পর শ্যাম্পু করলেই পার্থক্য টের পাবেন।

About Susmita Roy

Check Also

শিশুর দাঁত ভালো রাখবে যে খাবার

শিশুর দাঁত ভালো রাখবে যে খাবার

দাঁত থাকতে দাঁতের মর্যাদা নেই বলে যে একটা কথা আছে, এটা সবার ক্ষেত্রেই খাটে। তবে …

Leave a Reply

Your email address will not be published.